বুধবার, ১২ Jun ২০২৪, ১০:২১ অপরাহ্ন

ঢাকা – ময়মনসিংহ মহাসড়কে কমেছে দূর্ঘটনা যানজট নিয়ন্ত্রণে কাজ করছেন দুই থানার ওসি

ঢাকা – ময়মনসিংহ মহাসড়কে কমেছে দূর্ঘটনা যানজট নিয়ন্ত্রণে কাজ করছেন দুই থানার ওসি

আনিছুর রহমান:

ঢাকা – ময়মনসিংহ মহাসড়কে কমে এসেছে দুর্ঘটনা। মহাসড়কে যানজট ছিল নিত্যসঙ্গী । মাত্র ১৫ দিনে এ চিত্র পাল্টে দিয়েছেন, ময়মনসিংহ জেলার ত্রিশাল থানার ওসি মোহাম্মদ মাইন উদ্দিন এবং ভালুকা মডেল থানার ওসি মো: কামাল হোসেন । জেলা পুলিশ সুপার আহমার উজ্জামান পিপিএম সেবার নির্দেশনায় থানা পুলিশ কাজ করে যাচ্ছে । গুরুত্বপূর্ণ এই মহাসড়কে যানজট এখন সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে। কিছুদিন আগেও এ মহাসড়কের গুরুত্বপূর্ণ স্ট্যান্ডগুলোতে যানজট ছিল অসহনীয়।

জানা গেছে, ময়মনসিংহ- ঢাকা মহাসড়কে স্যালো ইঞ্জিনযুক্ত নসিমন, করিমন, ভটভটি, মোটরযুক্ত রিকশা, ভ্যান, অটো রিকশা, মোটর সাইকেল থেকে শুরু করে সিএনজি, ইজিবাইকসহ নানা ধরনের অনুমোদনহীন গাড়ী মহাসড়কে চলাচল করতো। মহাসড়কে থ্রী হুইলার ষ্ট্যান্ড থাকা,থ্রী হুলাইলার চলাচল,রাস্তা সংক্ষেপ করার জন্য ইউটার্ন দিয়ে উল্টোপথে চালনা,সুবিধামতো ব্যাবসায়ী,বিভিন্ন স্থাপনা,ফিলিং স্টেশনের সামনে অবৈধভাবে রাতের অন্ধকারে মহাসড়কের রোড ডিভাইডার কেটে রাস্তা বানানোর কারনে মহাসড়কে দূ্র্ঘটনা ছিলো নিত্যনৈমত্তিক ব্যাপার। এসব দূর্ঘটনায় প্রান হারাতে হয়েছে অনেক মানুষের। আহত হয়ে পঙ্গুত্ব বরন করে অসহায়ভাবে দিনযাপন করছে অসংখ্য পরিবার।সাধারণ মানুষ অসচেতন ও অসাবধানতার সাথে নিজের জীবনের মূল্য না বুঝেই ভ্যানে, রিকসায়,অটোতে করে মহাসড়কে যাতায়াত করছে।ফলে কম গতি সম্পন্ন এসব গাড়ী গতিসম্পন্ন গাড়ীর সাথে দূর্ঘটনায় পতিত হচ্ছে।

এসব অনিয়ম এবং মহাসড়কে যানজট ও দূর্ঘটনা এড়াতে থ্রী হুইলার বন্ধে কাজ করছে পুলিশ।ত্রিশাল থানায় গত দুই সপ্তাহে থ্রী হুইলার এর বিরুদ্ধে ৮০ টি মামলা দিয়েছে। অপরাধের ধরন, কাগজপত্র না থাকাসহ বিভিন্ন অনিয়মে মামলা দেয়া হয়েছে।অভিযান অব্যাহত আছে। দুই ওসির নেতৃত্বে থানা পুলিশ দুর্ঘটনা প্রতিরোধ এবং যানজট নিয়ন্ত্রণে কাজ করে যাচ্ছেন।জনবান্ধব এসকল কাজ করে পুলিশ সাধারন মানুষ,স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, সুশীল সমাজ, ব্যবসায়ী, ছাত্র-ছাত্রী শিক্ষকসহ সকলেই খুশি। ত্রিশাল থানার ওসি মাইন উদ্দিন বলেন, ঢাকা- ময়মনসিংহ মহাসড়কের ত্রিশাল অংশে ত্রিশাল বাসষ্ট্যান্ডসহ গুরুত্বপূর্ন পয়েন্টে মহাসড়কে থ্রী হুইলার বন্ধে,অবৈধ পার্কিং বন্ধে সকলের সহযোগিতায় কাজ করে যাচ্ছেন। ভালুকা থানার ওসি মো: কামাল হোসেন বলেন,বলেন, ভালুকা থেকে শ্রীপুরের সীমান্ত পর্যন্ত মহাসড়কে কোন ধরনের অবৈধ যানবাহন চলতে দেয়া হবে না। সকল ধরনের অবৈধ যানবাহনের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। স্থানীয়রা জানান, বেপরোয়া গতিতে যানবাহন চলাচল করায় দুর্ঘটনা আতঙ্ক এবং যানজটে বসে থেকে মানসিক চাপ তৈরি হত । দুই ওসি সাহেব আমাদের চাপ কমিয়েছেন । এখন দুর্ঘটনা যানজট নেই বললেই চলে। তারা অভিযান অব্যাহত রাখার আহবান জানিয়ে বলেন, দুই ওসির নজির বিরল।

শেয়ার করুন

Comments are closed.




দৈনিক প্রতিদিনের কাগজ © All rights reserved © 2024 Protidiner Kagoj |