রবিবার, ১৯ মে ২০২৪, ১১:১৫ অপরাহ্ন

অবশেষে হাম্বান্টোটায় ভিড়ছে চীনা জাহাজ

অবশেষে হাম্বান্টোটায় ভিড়ছে চীনা জাহাজ

ভারতের তীব্র আপত্তি সত্ত্বেও চীনা জাহাজকে ভিড়তে অনুমতি দিয়েছে শ্রীলঙ্কা। দেশটির হাম্বান্টোটায় ভিড়বে চীনের গোয়েন্দা জাহাজ ইউয়ান উয়াং-৫। শনিবার জাহাজটিকে প্রবেশের ও বন্দরে নোঙর করার অনুমতি দেয় শ্রীলঙ্কা।

ভারতের আশঙ্কা জাহাজটি তাদের সামরিক খাতের ওপর নজরদারি করতে পারে। দেশটি এ কারণে শ্রীলঙ্কাকে ইউয়ান উয়াং-৫ জাহাজটি ভেড়ার অনুমতি না দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছিল। খবর এএফপির

ইউয়ান উয়াং-৫ একটি গবেষণা এবং জরিপ তরি। তবে ভারতের গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, নয়াদিল্লির সন্দেহ এর মাধ্যমে ভারত মহাসাগরে মহড়া দেওয়ার পাশাপাশি শ্রীলঙ্কায় প্রভাব বাড়াতে চায় বেইজিং।

চীন সরকার পরিচালিত শ্রীলঙ্কার হাম্বানটোটা বন্দরে প্রাথমিকভাবে ১১ আগস্ট জাহাজটি নোঙর করার কথা ছিল। ভারতের আপত্তির মুখে তা স্থগিত করা হয়।

চীনা জাহাজটিকে নোঙরে অনুমোদন দেওয়ার ব্যাপারে শ্রীলঙ্কার হার্বার মাস্টার নির্মল পি সিলভা জানান, ১৬-২২ আগস্ট পর্যন্ত জাহাজটির হাম্বানটোটা বন্দর পরিদর্শনের বিষয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ছাড়পত্র তিনি পেয়েছেন। তিনি বলেন, ‘কূটনৈতিক ছাড়পত্রটি আমি আজ পেয়েছি। আমরা এখানকার বেইজিং প্রতিনিধিদের সঙ্গে কথা বলে বন্দরের লজিস্টিক বিষয়গুলো নিশ্চিত করব। ’

শ্রীলঙ্কার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, কলম্বো চীনা জাহাজটির নোঙর করার অনুমতি নবায়ন করেছে। এর আগে রাষ্ট্রপতি গোতাবায়া রাজাপক্ষে দেশ ছাড়ার আগের দিন ১২ জুলাই এ অনুমতি দেওয়া হয়েছিল।

বন্দর কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, গত শুক্রবার চীনা নৌযানটি শ্রীলঙ্কার এক হাজার কিলোমিটার দক্ষিণ-পূর্বে ছিল। পরে ধীরে ধীরে হাম্বানটোটা গভীর সমুদ্রবন্দরের দিকে এগোতে থাকে। ১৬ আগস্ট এটি হাম্বানটোটায় এসে পৌঁছাবে।

ভারতের তথ্য মতে, ইউয়ান উয়াং মহাশূন্য এবং স্যাটেলাইট ট্র্যাকিং, বিশেষ করে দূরপাল্লার ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণে ব্যবহার করা হতে পারে। এ ছাড়া ভারতের সামরিক কার্যক্রমে নজরদারি করতে পারে।

এনডিটিভি জানিয়েছে, শ্রীলংকার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ভারত বিষয়টি সরাসরি প্রেসিডেন্ট রনিল বিক্রমাসিংহেকে অবহিত করেছিল। কিন্তু ‘কেন শ্রীলংকায় চীনের এ জাহাজটি ভিড়তে দেওয়া উচিত হবে না’ সেটির সন্তোষজনক কারণ দেখাতে না পারায় শ্রীলংকা জাহাজটিকে নোঙর করার অনুমতি দিয়েছে৷

শেয়ার করুন

Comments are closed.




দৈনিক প্রতিদিনের কাগজ © All rights reserved © 2024 Protidiner Kagoj |