সোমবার, ১৫ Jul ২০২৪, ০২:২০ পূর্বাহ্ন

আপডেট
মাঝরাতে উত্তাল ঢাবি, পদত্যাগের ঘোষণা দিলেন ছাত্রলীগের চার নেতা রাতে হঠাৎ শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভের ডাক, উত্তপ্ত ঢাবি তাহলে কি রাজাকারের নাতিরা কোটা পাবে, প্রধানমন্ত্রীর প্রশ্ন সংঘাত যেন না হয় সে লক্ষ্যে কাজ করছে পুলিশ দাউদকান্দির শহীদনগর এমএ জলিল উচ্চ বিদ্যালয়ের কৃতী শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা কর্ণফুলীতে লালচান্দা বলে বিষাক্ত পিরানহা বিক্রি, প্রশাসনের নজরধারী নেই বাংলা ব্লকেড : সরকারকে শিক্ষার্থীদের ২৪ ঘণ্টার আলটিমেটাম পদ্মা নদী ভাঙ্গন রোধে নিজস্ব অর্থায়নে কাজ করছেন, মোস্তফা মুন্সী  চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে স্মারকলিপি প্রদান এবং গণপদযাত্রা শুরু বসুন্ধরা সিমেন্টের ব্যবসায়িক সম্মেলন অনুষ্ঠিত
যে আফসোস ভারতীয় অলরাউন্ডারের

যে আফসোস ভারতীয় অলরাউন্ডারের

১০ মাস ৫ দিন আগে দুবাই আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে পাকিস্তানের কাছে ১০ উইকেটে হেরে বিশ্বকাপের শুরুটা নড়বড়ে হয়েছিল ভারতের। তবে এশিয়া কাপে সেটা হতে দিল না রোহিতের দল।

একই স্টেডিয়ামে পাকিস্তানকে ৫ উইকেটে হারিয়েছে ম্যান ইন ব্লুরা। যদিও জয়টা পেতে ঘাম ঝরাতে হয়েছে বিরাট কোহলিদের।  শেষ ওভার পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয়েছে।

বিশ্লেষকদের মতে, শেষ দিকে হার্দিক পাণ্ডিয়া ও জাদেজা অসাধারণ ব্যাটিং না করলে হয়তো ফল ঘুরেও যেতে পারত।

হার্দিক পান্ডিয়ার (৩৩) সঙ্গে পঞ্চম উইকেটে ৩২ বলে ৫২ রানের জুটি গড়েন অলরাউন্ডার জাদেজা।  আর তাদের ম্যাচজয়ী জুটিতে বিশ্বকাপের সেই হারের শোধটাও তোলা হয়ে গেছে ভারতের।

এরপরও একটা আফসোস থেকেই যাচ্ছে জাদেজার। তাহলো ম্যাচ জিতিয়ে মাঠ ছাড়তে পারেননি তিনি।  মোহাম্মদ নওয়াজের করা শেষ ওভারের প্রথম বলেই বোল্ড হয়ে ফেরেন তিনি।  দুই বল বাকি থাকতে পান্ডিয়া ভারতকে জয় এনে দেন ছয় মেরে।

পাকিস্তানের বিপক্ষে মধুর প্রতিশোধের জয়ের পর জাদেজা বলেন, ‘আমরা চেয়েছিলাম শেষ পর্যন্ত খেলতে। তাই হয়েছে। আমি ম্যাচটা শেষ করে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়তে চেয়েছিলাম। কিন্তু পারিনি।  বাঁ হাতি স্পিনারের বিরুদ্ধে বাঁ হাতি ব্যাটার। তবে পেরেছে পান্ডিয়া। ও সত্যিই খুবই ভালো খেলেছে। আমাকে সে বলে, নিজের স্বাভাবিক খেলাটাই খেলবে। আমি খুশি যে, দলকে সে জিতিয়ে মাঠ ছেড়েছে। তার ছক্কায় ভারত জিতেছে, এতে আমি বেশি খুশি। জয় দিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করেছি, এটা আমাদের জন্য অত্যন্ত আনন্দের।’

পাকিস্তানের প্রশংসাও করলেন এ ভারতীয় অলরাউন্ডার।  বললেন, ‘পাকিস্তানের বোলিং আক্রমণ খুবই ভালো। ওদের ফাস্ট বোলাররা সহজে হাল ছেড়ে দেয় না। (শেষ অবধি লড়াই চালিয়ে যায় তারা)।’

শেয়ার করুন

Comments are closed.




দৈনিক প্রতিদিনের কাগজ © All rights reserved © 2024 Protidiner Kagoj |