সোমবার, ১৫ Jul ২০২৪, ০১:৪৮ পূর্বাহ্ন

আপডেট
রাতে হঠাৎ শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভের ডাক, উত্তপ্ত ঢাবি তাহলে কি রাজাকারের নাতিরা কোটা পাবে, প্রধানমন্ত্রীর প্রশ্ন সংঘাত যেন না হয় সে লক্ষ্যে কাজ করছে পুলিশ দাউদকান্দির শহীদনগর এমএ জলিল উচ্চ বিদ্যালয়ের কৃতী শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা কর্ণফুলীতে লালচান্দা বলে বিষাক্ত পিরানহা বিক্রি, প্রশাসনের নজরধারী নেই বাংলা ব্লকেড : সরকারকে শিক্ষার্থীদের ২৪ ঘণ্টার আলটিমেটাম পদ্মা নদী ভাঙ্গন রোধে নিজস্ব অর্থায়নে কাজ করছেন, মোস্তফা মুন্সী  চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে স্মারকলিপি প্রদান এবং গণপদযাত্রা শুরু বসুন্ধরা সিমেন্টের ব্যবসায়িক সম্মেলন অনুষ্ঠিত পুলিশের ব্যারিকেড ভেঙে বঙ্গভবনের দিকে যাচ্ছেন শিক্ষার্থীরা
আপাতত বড় প্রকল্প নয়: প্রধানমন্ত্রী

আপাতত বড় প্রকল্প নয়: প্রধানমন্ত্রী

করোনা মহামারি ও রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে সারা বিশ্বের অর্থনীতিই আজ বিপর্যস্ত। বাংলাদেশও এর ব্যতিক্রম নয়। এমন অবস্থায় দেশের অর্থনীতি ভালো অবস্থানে রাখতে সরকার চেষ্টা চালাচ্ছে। দেশ যেন সংকটে না পড়ে সেজন্য আপাতত বড় কোনো প্রকল্প হাতে নেওয়া হবে না বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তবে ছোট উন্নয়নমুখী প্রকল্পের কাজ চলমান থাকবে বলে জানান তিনি।

মঙ্গলবার (৮ নভেম্বর) জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী (একনেক) কমিটির সভায় প্রধানমন্ত্রী এমন অনুশাসন দেন। বৈঠকের পর পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান সংবাদ ব্রিফিংয়ের সময় প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসনের কথা তুলে ধরেন। শেরেবাংলা নগরে এনইসি সম্মেলন কক্ষে একনেকের সভায় সভাপতিত্ব করেন সরকারপ্রধান।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, একনেকের বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী আয়েসি-বিলাসী প্রকল্প না নেওয়ার বিষয়ে অনুশাসন দিয়েছেন। তবে ছোট গ্রামীণ প্রকল্প বা কল্যাণমুখী প্রকল্পের কাজ চলমান রাখার কথা বলেছেন।

এম এ মান্নান বলেন, বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন বড় বড় প্রকল্প নেওয়া যাবে না। বড় প্রকল্প গ্রহণে ফিসিজিবিলিটি স্টাডি গভীরভাবে দেখতে হবে। এক বছর ধরে কমিশন যে কৌশলে কাজ করছে এটা নিয়ে প্রধানমন্ত্রী সন্তোষ প্রকাশ করেন।

প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন তুলে ধরে পরিকল্পনামন্ত্রী আরও বলেন, উৎপাদন বাড়াতে হবে। এক ইঞ্চি জমি ফেলে রাখা যাবে না। জমিতে নানা ধরনের চাষাবাদ করতে হবে। প্রধানমন্ত্রী কেবিনেট সচিবকে নির্দেশ দিয়েছেন ডিসিরা যেন অনাবাদি জমি খুঁজে বের করেন। সংবাদ ব্রিফিংয়ে আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলসহ সব ধরনের খাদ্যপণ্যের দাম বেড়ে যাওয়ায় চলতি বছর অক্টোবরে মূল্যস্ফীতি কমে ৮ দশমিক ৯১ শতাংশে দাঁড়িয়েছে বলে জানান পরিকল্পনামন্ত্রী।

একনেকের আজকের বৈঠকে ৩ হাজার ৯৮১ কোটি ৯০ লাখ টাকা ব্যয় সম্বলিত সাতটি প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে সরকারি অর্থায়ন ৩ হাজার ৩৯২ কোটি ৩৩ লাখ টাকা, বৈদেশিক অর্থায়ন ৩২২ কোটি ২১ লাখ টাকা এবং সংস্থার নিজস্ব অর্থায়ন ২৬৭ কোটি ৩৫ লাখ টাকা।

শেয়ার করুন

Comments are closed.




দৈনিক প্রতিদিনের কাগজ © All rights reserved © 2024 Protidiner Kagoj |